জাতির পরিচয় মুছে ফেলতে চান বেগম জিয়া?


জাতির পরিচয় মুছে ফেলতে চান বেগম জিয়া?

জাতির পরিচয় মুছে ফেলতে চান বেগম জিয়া?

মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী

বেগম জিয়া আজ বাঙালী জাতির পরিচয়, অস্তীত্ব, ঠিকানা মুছে ফেলতে উদ্যত হয়েছেন। যেকোন মূল্যে বেগম জিয়ার এই ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে।

‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ কর্মসূচী আবারো প্রমাণ করলো ‘যতো গর্জায় ততোটা বর্ষায় না।’ বিরোধী দলের আস্ফালন, হুমকি আর্তনাদ দেখে মনে হয়েছিল, লাখ লাখ মানুষ রাস্তায় নেমে পরবে। খালেদা জিয়া বলেছিলেন ‘যেকোন মুল্যে কর্মসূচী সফল করা হবে।’ কিন্তু নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা রাজধানীতে কাকপক্ষী দেখা গেলেও বিএনপির নেতা কর্মীদের দেখা গেলো না। ২৯ ডিসেম্বর আবারো প্রমাণ করলো, জনগণের সম্পৃক্ততা ছাড়া ষড়যন্ত্র হয় কিন্তু আন্দোলন হয় না। ২৯ ডিসেম্বর নিরুত্তাপ জনগণ খালেদা জিয়াকে প্রত্যাখান করলেন। তারা বেগম জিয়ার ডাকে সাড়া দিলেন না। প্রেসক্লাবে কিছু অ-সাংবাদিকের চিৎকার চেঁচামাচি এবং সুপ্রীম কোর্টের সামনে কালো কোট পরিহিত কিছু রাজনৈতিক কর্মীর তামাশা ছাড়া ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’ ছিলো ভাওতাবাজি। এযেন পর্বতের মুসিক প্রসব।

সকাল পেরিয়ে পরন্ত বিকেলে আপোষহীন নেত্রীর অশোভন কিছু খিস্তি হলো ‘গণতন্ত্রের অভিযাত্রা’র একমাত্র প্রাপ্তি। বেগম খালেদা জিয়া বিরোধী দলের নেত্রী। এই সরকারকে ইদানিং প্রায়ই তিনি ‘অবৈধ’ বলেন। তাহলে ‘অবৈধ’ সরকারের, অবৈধ সংসদের বিরোধী দলের নেতা হিসেবে তিনিও অবৈধ। অবৈধ হলেও তিনি সরকারী সুযোগ সুবিধা ঠিকই নিচ্ছেন। এমনকি যে গাড়ীতে উঠে তিনি পল্টন যাত্রার নাটক করলেন, টেলিভিশনের বদৌলতে দেখলাম সেই গাড়ীতে জাতীয় পতাকা লাগানো।

বেগম জিয়াকে নিরাপত্তার জন্য তার বাসভবন থেকে বেরুতে দেয়া হয়নি। তিনি যে গৃহবন্দী বা গ্রেপ্তার হননি, তার প্রমাণ পাওয়া গেলো বিকেলে। তিনি টেলিভিশন ক্যামেরার সামনে বেশ কিছু কথা বললেন। গ্রেপ্তার বা গৃহবন্দী কোন ব্যক্তি নিশ্চয়ই গণমাধ্যমের সামনে এভাবে গালাগাল করতে পারেন না। বিরোধী দলের নেতা একজন সম্মানিত ব্যক্তি। তাই তার কাছে জনগণ সবসময় শালীন এবং শিষ্টাচার সম্মত বক্তব্য আশা করেন। কিন্তু তিনি যে ভাষায় এবং যে স্বরে উপস্থিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজনকে ধমকালেন, সেই ভাষা রাজতন্ত্রের যুগে ‘মহারানী’রাও ধমকাতেন কিনা, সেজন্য ইতিহাস ঘাটতে হবে। তিনি এক নারী কর্মকর্তাকে তারস্বরে ধমকে ‘বেয়াদপ’ বললেন। এর আগে সংসদেও তিনি একবার বেয়াদপ বলে আওয়ামী লীগের সাংসদদের শাসিয়েছিলেন। কথায় কথায় কাউকে বেয়াদপ, চুপ ইত্যাদি বলা গণতান্ত্রিক চর্চা নয়। এটা সামন্ততাান্ত্রিক রীতি ও সংস্কৃতি। বেগম জিয়া যে জনগণের অধিকারে বিশ্বাস করেন না, সামন্ততন্ত্র, স্বৈরতন্ত্র, রাজতন্ত্রের বিশ্বাস করেন এই ধমক তার একটি প্রমাণ মাত্র। বেগম জিয়া দুবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, তিনি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনাকে কি ভাষায় সম্মোধন করলেন? এটা কি ভদ্রসমাজে ব্যবহার্য ভাষা? বেগম জিয়া একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞেস করলেন ‘গোপালী’? এর পর তিনি যে কথাটা বললেন, তা ভয়াবহ। তিনি বললেন ‘গোপালগঞ্জের নাম পাল্টে দেবো।’ গোপালগঞ্জ, বাংলাদেশ এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িয়ে থাকা তিনটি নাম। গোপালগঞ্জের পবিত্র মাটিতে জন্ম নিয়েছিলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। গোপালগঞ্জের পবিত্র মাটিতেই শায়িত আছেন এই জাতির প্রতিষ্ঠাতা পুরুষ। এজন্যই কি, বেগম জিয়ার গোপালগঞ্জের উপর এতো রাগ? ‘বাংলাদেশ’ নামে রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠায় ‘গোপালগঞ্জ’ চির ভাস্কর একটি নাম। এজন্যই কি গোপালগঞ্জের উপর বেগম জিয়ার এতো ক্ষোভ? এজন্যই কি তিনি গোপালগঞ্জের নাম পাল্টে ফেলতে চান? গোপালগঞ্জ নাম পাল্টে তিনি কি রাখতে চান? কান্দাহার? পাঞ্জাব? বেলুচিস্থান? নাকি অন্য কোন নাম? গোপালগঞ্জ নাম পাল্টানোর গোপন ইচ্ছা প্রকাশ্য হবার মধ্যে দিয়ে বেগম জিয়ার জন্য গোপন ইচ্ছাগুলো উঁকি দিলো। তিনি কি ‘বাংলাদেশ’ নামটাও পাল্টে ফেলতে চান? তিনি কি আমাদের জাতীয় সংগীত পাল্টে ফেরতে চান? এজন্যই কি তার এই আন্দোলন? তত্বাবধায়ক সরকারের মোড়কে এটাই কি তার আসল উদ্দেশ্য? এসব প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে বেগম জিয়াকেই। এর জবাবে আমাদের ‘বেয়াদপ’ বলা হলেও আমরা চুপ থাকবো না। ২৪ ডিসেম্বর বেগম জিয়ার লিখিত বক্তব্যটি ছিলো মার্জিত, সুন্দর, কিন্তু ২৯ ডিসেম্বর তার তাৎক্ষনিক বক্তব্যটি কুৎসিত, অরুচিকর। এর আগে বেগম জিয়া প্রধানমন্ত্রীর সংগে টেলিসংলাপেও এরকম নোংরা শব্দ ব্যবহার করেছিলেন। বেগম জিয়ার লিখিত বক্তব্য যে তার কথা নয়, অন্যের লিখে দেয়া বক্তব্য তা বোঝার মতো লোকের অভাব নেই বাংলাদেশে।

 *****************************************
লেখক: চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ।
তারিখ: ২০১৩-১২-২৯

logo

About Ehsan Abdullah

An aware citizen..
This entry was posted in BENGALI NATIONALISM, CHALLENGES, CURRENT ISSUES, INTERNATIONAL - PERCEPTION ON BANGLADESH, LIBERATION - 1971 BIRTH OF A NATION. Bookmark the permalink.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s